গ্রন্থাগারিকদের গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান শিক্ষক ঘোষণার দাবীতে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত - ২৮ জানুয়ারি ২০১৭

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত গ্রন্থাগারিকদের গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান শিক্ষক ঘোষণার দাবীতে আজ ২৮ জানুয়ারি ২০১৭, শনিবার, বেলা ১১টায়, জাতীয় প্রেসক্লাব, তোপখানা রোড, ঢাকায় সারা দেশের কয়েক শত গ্রন্থাগারিক, গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা ও তথ্যবিজ্ঞান বিভাগের  শিক্ষক ও শিক্ষার্থীগন মানব বন্ধনে অংশগ্রহন করে। বাংলাদেশ গ্রন্থাগারিক ও তথ্যায়নবিদ সমিতি (বেলিড)-এর ডাকে অনুষ্ঠিত মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন বেলিডের সাবেক  চেয়ারম্যান ডঃ মির্জা মোঃ রেজাউল ইসলাম, বেলিডের সাবেক  ভাইস-চেয়ারম্যান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স এসোসিয়েশনের বর্তমান সভাপতি সৈয়দ আলী আকবর, গ্রন্থাগারিক ডঃ মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, ল্যাব কাউন্সিলর আনোয়ারুল কবীর, বেলিডের  মহাসচিব শশাংক কুমার সিংহ সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গ্রন্থাগার পেশাজীবীগন। বক্তাগন গ্রন্থাগারিকদের শিক্ষকের মর্যাদা অযৌক্তিকভাবে বাদ দিয়ে জারিকৃত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, ঢাকার পরিপত্র বাতিলের দাবী জানান।  তারা বলেন দেশের সকল মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত গ্রন্থাগারিকগন গ্রন্থাগার ক্লাসসহ অন্যান্য ক্লাস নিয়ে থাকেন এবং শিক্ষার্থীদের পাঠ্য বইয়ের পাশাপাশি সৃজনশীল বইয়ের পাঠদানের মাধ্যমে মেধা, মন, মনন ও মানসিক বিকাশে ভূমিকা রাখেন । গ্রন্থাগারিকদের শিক্ষকের মর্যাদা না দেয়া হলে এবিষয়টিকে অবহেলা করা হবে, ফলে শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশ বাঁধা গ্রস্থ হবে এবং সমাজে সন্ত্রাসী, মানবিক বিকার গ্রস্থ ও বিপথগামি তরুণের জন্ম দিবে।

বক্তাগন বলেন, দেশের গ্রন্থাগারিকগন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার নীরব নিবেদিত কর্মী। তাদের যথাযথ মর্যাদা না দেয়া হলে ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল জনগণের দ্বারপ্রান্তে পৌছাবে না। গ্রন্থাগারিকরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষা মন্ত্রীর নিকট আকুল আবেদন জানান, তারা যেনো দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত গ্রন্থাগারিকদের গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান শিক্ষক ঘোষণার বিষয়টি সহানুভূতির সাথে বিবেচনা করে আশুব্যবস্থা গ্রহন করেন।  বেলিড পরবর্তী কর্মসূচি হিসেবে দেশের সকল গ্রন্থাগারিকদের আগামী ১১ মার্চ ২০১৭ শনিবার বেলা ১১ টায় কেন্দ্রিয় শহীদ মিনার, ঢাকা প্রাঙ্গণে প্রতীকী অনশন কর্মসূচি পালনের আহবান করেছে।